উভয় সংকটে বিএনপি

রেজা মাহমুদ
মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে অভিযুক্ত কারাবন্দি দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরীকে নিয়ে উভয় সংকটে পড়েছে বিএনপি।
আজ মঙ্গলবার আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে সাকা চৌধুরীর বিরুদ্ধে মামলার রায়। এ রায়ের বিরুদ্ধে কর্মসূচি দেওয়া নিয়ে দলের মধ্যে দুটি পক্ষ তৈরি হয়েছে। কোনো কোনো নেতা কঠোর কর্মসূচি দেওয়ার পক্ষে অবস্থান নিয়েছেন। তবে যুদ্ধাপরাধের বিচারের পক্ষে দেশব্যাপী ব্যাপক সমর্থন থাকায় সালাহউদ্দিন কাদেরের পক্ষে জোরালো অবস্থান না নেওয়ার পক্ষেও মত দিয়েছেন অনেক নেতা। এ নিয়ে কী অবস্থান নেওয়া যাবে, তা ঠিক করতে বেকায়দায় পড়েছে দলটি। তবে নেতারা বলছেন, রায়ের পরই দলের প্রতিক্রিয়া জানানো হবে। সূত্র জানায়, সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরীর মামলার রায় ঘোষণার দিন এসে 
যাওয়ায় চরম বিব্রত বোধ করছে দলের হাইকমান্ড। একদিকে এ নেতাকে দলের ‘কেউ নয়’ তা বলতে পারছে না, অন্যদিকে ‘দলের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরামে’র সদস্য এই নেতার পক্ষেও জোরালো অবস্থান নিতে পারছেন না তারা।
রায়ের পর প্রতিক্রিয়া :কী হবে এই রায়ের প্রতিক্রিয়া_ তা জানতে চাইলে দলের অধিকাংশ নেতাই ‘কিছু’ জানাতে অক্ষমতার কথা জানান। এ প্রসঙ্গে দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাংবাদিকদের বলেন, ‘রায় হোক, তার পরই আমরা এ বিষয়ে দলের অবস্থান জানাব।’ স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেছেন, রায়ে কী হয় তা দেখে বিএনপি ব্যবস্থা নেবে। স্থায়ী কমিটির অন্য সদস্য লে. জেনারেল (অব.) মাহবুবুর রহমান সমকালকে বলেন, রায়ের পরই এ ব্যাপারে দলের পক্ষ থেকে প্রতিক্রিয়া জানানো হবে। স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, দলীয় ফোরামে আলোচনা করে প্রতিক্রিয়া জানানো হবে। এ ছাড়া রায়ের পর বিএনপি ও জামায়াত সমর্থিত আইনজীবীরা একটি সংবাদ সম্মেলন করে তাদের বক্তব্য তুলে ধরবেন বলেও জানা গেছে।
বিচার প্রক্রিয়া স্বচ্ছ করার দাবি :মানবতাবিরোধী বিচার প্রক্রিয়া নিয়ে বিএনপি গতানুগতিক পুরনো বক্তব্যই দিয়ে যাচ্ছে। দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ নেতারা বলে আসছেন, তারা এ বিচারের বিপক্ষে নন। তবে এ বিচার স্বচ্ছ, নিরপেক্ষ এবং আন্তর্জাতিক মানের হতে হবে। 
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেনও বলেন, ‘আমরা কখনোই এ বিচারের বিপক্ষে নই। বিএনপি চায়, নিরপেক্ষ ও প্রতিহিংসামুক্ত বিচার। ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগে যে যুদ্ধাপরাধী রয়েছে, তাদেরও বিচার হতে হবে। 
বিএনপি ক্ষমতায় এলে এ বিচার প্রক্রিয়া অব্যাহত রাখা হবে বলে জানান তিনি। 
লে. জেনারেল (অব.) মাহবুবুর রহমান সোমবার সমকালকে বলেন, ‘আমরা মানবতাবিরোধী বিচারের পক্ষে। আমাদের চাওয়া একটিই, তা হচ্ছে, এ বিচার হতে হবে স্বচ্ছ, নিরপেক্ষ ও আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন। আমরা রাজনৈতিক প্রতিহিংসামুক্ত বিচারের পক্ষে। তিনি বলেন, ইতিমধ্যে এ বিচার প্রক্রিয়ার স্বচ্ছতা নিয়ে বিভিন্ন মহল থেকে প্রশ্নও উঠেছে। তিনি বলেন, আমাদের দলের স্থায়ী কমিটির অন্যতম সদস্য সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরীর মামলার রায় নিরপেক্ষ ও রাজনৈতিক ইচ্ছামুক্ত হোক, তা-ই আমরা চাচ্ছি।’ 
সাকার স্ত্রী ফারহাত কাদের চৌধুরী এ ব্যাপারে বলেন, এ মামলায় তাড়াহুড়া করে রায় দেওয়া হচ্ছে। আমাদের সব সাক্ষীর বক্তব্য শোনা হয়নি। তার পরও আমরা আশা করছি, ন্যায়বিচার পাব।