এখনো নেগ্রিমসেই সালাহ উদ্দিন আহমদ

sala

বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সালাহ উদ্দিন আহমদকে গতকাল বুধবার থেকে এখন পর্যন্ত নর্থ ইস্টার্ন ইন্দিরা গান্ধী রিজওনাল ইনস্টিটিউট অব হেলথ অ্যান্ড মেডিকেল সায়েন্সেস বা নেগ্রিমসের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) রাখা হয়েছে। গতকাল বিকেলে তাঁর স্বাস্থ্যবিষয়ক বেশ কিছু পরীক্ষা করা হলেও আজ বৃহস্পতিবার সকালে আর কোনো পরীক্ষা হয়নি।
সালাহ উদ্দিন আহমদের স্ত্রী হাসিনা আহমেদ তাঁদের আইনজীবী এস পি মাহান্তের সঙ্গে কথা বলতে সকালে তাঁর হাইকোর্ট এলাকার দপ্তরে গেছেন।
নেগ্রিমসের পরিচালক এ জি এহেনগার গতকাল সন্ধ্যায়  জানান, বিএনপি নেতার স্বাস্থ্যবিষয়ক বেশ কিছু পরীক্ষা করা হবে। এরপর তাঁকে একজন চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে রাখা হবে। আজ দুপুরের পর স্বাস্থ্য পরীক্ষার প্রতিবেদন পর্যালোচনা শেষে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।
সালাহ উদ্দিন আহমদের আইনি পদক্ষেপ সম্পর্কে জানতে চাইলে তাঁর আইনজীবী এস পি মাহান্ত এ প্রতিবেদকের কাছে কোনো মন্তব্য করতে চাননি। তিনি জানান, বিএনপি নেতার স্ত্রীর পাশাপাশি এখানকার কর্তৃপক্ষ এবং পুলিশও তাঁর সুস্থ হওয়ার বিষয়টিকে অগ্রাধিকার দিচ্ছেন।
গত ১১ মে শিলংয়ের গলফ-লিংক এলাকা থেকে আটকের পর সালাহ উদ্দিনকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য সিভিল হাসপাতালে নেওয়া হয়। প্রাথমিকভাবে কোনো শারীরিক সমস্যা না থাকলেও মানসিক সমস্যা আছে মনে করে পুলিশ বিএনপি নেতাকে মানসিক হাসপাতালে পাঠায়। সেখানে একদিন রাখার পর তাঁকে ১২ মে আবার সিভিল হাসপাতালে পাঠানো হয়। কিন্তু মূত্রনালিতে সংক্রমণ, কিডনিতে পাথরের উপস্থিতি ও মেরুদণ্ডে ব্যথার কারণে বিএনপি নেতা সালাহ উদ্দিন আহমদকে চিকিৎসকদের পরামর্শে শিলংয়ের সিভিল হাসপাতাল থেকে নেগ্রিমসে ভর্তি করা হয়েছে।
বিনা পাসপোর্টে ভারতে অনুপ্রবেশের অভিযোগে ফরেনার্স অ্যাক্ট-৪৬ অনুযায়ী সালাহ উদ্দিন আহমদের বিচার হবে। তবে পুরোপুরি সুস্থ না হওয়া পর্যন্ত তাঁকে আদালতে পাঠানোর সম্ভাবনা কম।