না গ রি ক অ ভি ম ত

এ প্রস্তাব গ্রহণ করা উচিত…রফিক-উল হক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সর্বদলীয় সরকার গঠনের যে প্রস্তাব দিয়েছেন, এর চেয়ে উত্তম প্রস্তাব আর কিছু হতে পারে না। বিরোধী দলের উচিত হবে প্রধানমন্ত্রীর এই প্রস্তাব গ্রহণ করা।
প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ২৫ অক্টোবর থেকে ২৪ জানুয়ারির মধ্যে নির্বাচন হবে এবং তিনি সব দলের অংশগ্রহণে নির্বাচন করতে চান। এই সময়ে যে অন্তর্বর্তী সরকার থাকবে, সেই সরকারের মন্ত্রিপরিষদে বিরোধী দলের সদস্যরা থাকতে পারবেন। প্রধানমন্ত্রী এ বিষয়ে বিরোধী দলকে প্রয়োজনে সংসদে গিয়ে কথা বলার আহ্বান জানিয়েছেন।
অন্তর্বর্তী সরকারের প্রধান কে থাকবেন, সে বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী স্পষ্ট কিছু বলেননি। তবে তিনিই যে এ দায়িত্বে থেকে যাবেন, তা কিন্তু তিনি বলেননি। সুতরাং সরকারপ্রধান কে হবেন, তা অন্তর্বর্তী সরকারের মন্ত্রিপরিষদের মাধ্যমে ঠিক করার একটি সুযোগ আছে। মন্ত্রিপরিষদ চাইলে শেখ হাসিনা সরকারপ্রধান থাকবেন, না চাইলে অন্য কেউ থাকবেন। বিষয়টি নিয়ে আর বিতর্ক চালানোর সুযোগ নেই। এতে সমস্যা আরও বাড়বে।
প্রধানমন্ত্রী যেভাবে সংবিধানের ১২৩ অনুচ্ছেদের কথা বলেছেন, তাতে এটা স্পষ্ট যে সংসদ বহাল রেখেই নির্বাচন হবে। অর্থাৎ, সাংসদেরা স্বপদে বহাল থাকবেন। এতে নির্বাচনে সবার জন্য সমান সুযোগ তৈরির বিষয়টি অনেক ক্ষেত্রে ব্যাহত হবে। কিন্তু বর্তমানে দেশ যে সংকটের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে, এ অবস্থায় বিষয়টি নিয়ে আর বাড়াবাড়ি না করাই ভালো। বরং বাড়াবাড়ি করলে দেশের অবস্থা আরও খারাপ হবে। আমাদের মনে রাখতে হবে, সবকিছু একসঙ্গে পাওয়া যায় না। সংকট উত্তরণে সব দলকেই কিছু কিছু ক্ষেত্রে ছাড় দিতে হবে।
রফিক-উল হক: বিশিষ্ট আইনজীবী