কারসাজি করে ক্ষমতায় থাকতেই সংবিধান সংশোধনঃ এরশাদ

কারসাজি করে ক্ষমতায় থাকতেই সংবিধান সংশোধন করা হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। তিনি বলেছেন, ‘আমি ক্ষমতায় থাকাকালে সংবিধানে হাত দিইনি। সংবিধান স্থগিত করেছিলাম। আর এখন ক্ষমতার জন্য কারসাজি করে সংবিধান সংশোধন করা হয়েছে। কিন্তু ক্ষমতার মালিক আল্লাহ।’
গতকাল শনিবার দুপুরে রাজধানীর গুলিস্তানে মহানগর নাট্যমঞ্চে বাংলাদেশ গ্রাম ডাক্তার কল্যাণ সমিতির ৩৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এরশাদ এ কথা বলেন।
এরশাদ বলেন, নির্বাচন পদ্ধতির সংস্কার করতে হবে। আনুপাতিক হারে সংসদ নির্বাচন দিতে হবে। তিনি বলেন, মানুষ লাঙ্গল, ধানের শীষ, নৌকা ও মশালে ভোট দেবে। তাতে সব দলের প্রতিনিধি সংসদে যেতে পারবেন।
জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, এখন থেকে আর কোনো জোট নয়। ১ শতাংশ ভোট পেলেও কোনো দলের আসন শূন্য থাকবে না। ছোট দলের প্রতিনিধিও সংসদে থাকতে পারবেন। এতে যে দল ৩০ শতাংশ ভোট পাবে, তারা ৯০টি আসন পাবে। আর যারা ৬০ শতাংশ ভোট পাবে, তারা সরকার গঠন করবে। কিন্তু বাংলাদেশে কোনো দল ৬০ শতাংশ ভোট পাবে না। কেউ এককভাবে সরকার গঠন করতে পারবে না।
এরশাদ বলেন, ‘আমি ক্ষমতায় থাকাকালীন গ্রাম পর্যায়ে ডাক্তারদের জন্য তিন মাসের ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থা করেছিলাম। কিন্তু বর্তমানে আপনাদের জন্য কিছুই করা হচ্ছে না। তবে আমি কিছু বললেই পরের দিনই তা বাস্তবায়ন হবে, সেই দিনও আর বেশি দূরে নয়।’
মানুষ চাচ্ছে পরিবর্তন- উল্লেখ করে এরশাদ বলেন, ‘উনি চলে গেলে তাঁরা আসবেন। উনারা এসে দেশকে বেহেশত বা স্বর্গ বানাননি। দেশের অবস্থা আরো অবনতির দিকে গেছে। ইয়াবায় যুবসমাজ ধ্বংস হয়ে গেছে। মা-বাবার সংসার নিঃস্ব হয়ে যাচ্ছে।’
সরকারের উদ্দেশে এরশাদ বলেন, ‘আপনারা কেন নির্বাচন করতে ভয় পাচ্ছেন। এমন কী করেছেন? যে পরাজয় হলে বাড়িঘর জ্বলবে এই ভয় পাচ্ছেন।’ তিনি বলেন, ‘জনগণ আমাদের সেবা করার জন্য ভোট দিয়েছেন, শাসন করার জন্য নয়।’
গ্রাম ডাক্তার কল্যাণ সমিতির সভাপতি আব্দুস সাত্তার ভিডির সভাপতিত্বে সম্মেলনে আরো বক্তব্য দেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব রুহুল আমীন হাওলাদার, প্রেসিডিয়াম সদস্য অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন খান, জিয়া উদ্দিন আহমেদ বাবলু, সুনীল শুভ রায়, সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবু ইউসুফ খান প্রমুখ।