নারী-শিশু নির্যাতনে সাজার হার ১ শতাংশেরও কম

nnn

নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে দেশে প্রতি বছর হাজারো মামলা হলেও মামলায় অভিযুক্ত ব্যক্তিদের সাজা পাওয়ার হার এক শতাংশেরও কম। দেশের তিনটি জেলায় ২০০৯ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত ২২ হাজার ৭৩টি মামলার নিষ্পত্তি হলেও এতে সাজা পেয়েছেন মাত্র ১৮৬ জন। সাজা পাওয়ার হার দশমিক ৯৪ শতাংশ।

ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের এক গবেষণা প্রতিবেদনে এই তথ্য দেওয়া হয়েছে। ঢাকা, কুমিল্লা ও পাবনা জেলার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালতের মামলা পর্যালোচনা করে তারা এই প্রতিবেদন তৈরি করেছে। প্রতিবেদনটি আজ বুধবার রাজধানীর ব্র্যাক ইন সেন্টারে প্রকাশ করা হয়।
গবেষণা প্রতিবেদনটি তৈরি করেছেন ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের প্রভাষক তানজিনা শারমিন ও আতিয়া নাজনীন। গবেষণা কাজে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়কে সহযোগিতা করেছে যুক্তরাজ্যের আন্তর্জাতিক উন্নয়ন বিভাগ (ইউকেএইড) ও জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচি (ইউএনডিপি)।
প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০০৯ সালে ঢাকা, কুমিল্লা ও পাবনা জেলায় বিচারাধীন মামলা ছিল ৮ হাজার ৭২৭টি। ২০১৪ সালে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৪ হাজার ৪৭৪-এ। এ সময়ে মোট মামলা হয়েছে ৩৭ হাজার ৯১৫টি।
ছয় বছরে মোট মামলা নিষ্পত্তি হয়েছে ২২ হাজার ৭৩টি। এর মধ্যে ২০০৯ সালে ২ হাজার ৬০৮ টি,২০১০ সালে ২ হাজার ৬৪২ টি,২০১১ সালে ৩ হাজার ৩২ টি,২০১২ সালে ৪ হাজার ২৭৯ টি,২০১৩ সালে ৪ হাজার ৯৭০টি এবং ২০১৪ সালে ৪ হাজার ৫৪২টি।
নিষ্পত্তি হওয়া মামলায় সাজা পেয়েছেন মাত্র ১৮৬ জন। এর মধ্যে ২০০৯ সালে ৫৪ জন, ২০১০ সালে ৪৮ জন, ২০১১ সালে ২৩ জন, ২০১২ সালে ২৭ জন, ২০১৩ সালে ১৫ এবং ২০১৪ সালে ১৯ জন। ২০০৯ সালে সাজা পাওয়ার হার ছিল ১ দশমিক ৯২ শতাংশ। ২০১৪ সালে তা এসে দাঁড়িয়েছে দশমিক ৪০ শতাংশে।
একই সময়ে মামলা থেকে খালাস পান ১২ হাজার ৫৪ জন। ২০০৯ সালে মামলা থেকে খালাস পাওয়ার হার ছিল ৯৮ দশমিক ০৮ শতাংশ। ২০১৪ সালে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯৯ দশমিক ৬০ শতাংশে।
প্রতিবেদন প্রকাশ অনুষ্ঠানের সূচনা বক্তব্যে আইনজীবী শাহদীন মালিক বলেন, এই প্রতিবেদন থেকে প্রতীয়মান হয়, বিচার প্রক্রিয়া ত্রুটিপূর্ণ। দুর্বল তদন্ত প্রতিবেদনের কারণে সিংহভাগ অভিযুক্ত ব্যক্তি মামলা থেকে খালাস পেয়ে যান। ছয় বছরে ২২ হাজারের বেশি মামলায় সাজা হয়েছে মাত্র ১৮৬ জনের। এটি বিস্ময়কর। তিনি আরও বলেন, আদালতের রায় অনুযায়ী ৯৯ শতাংশ অভিযুক্ত ব্যক্তি নির্দোষ। কিন্তু নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন অনুযায়ী এদের নিশ্চিতভাবে তিন মাস জেলা খাটতে হয়েছে। তারা যে বিনা অপরাধে জেলা খাটলেন তার প্রতিকার কী?
প্রতিবেদনের তথ্যানুযায়ী ছয় বছরে মামলা নিষ্পত্তির হারও সন্তোষজনক নয়। ২০০৯ সালে মামলা নিষ্পত্তির হার ছিল ২১ দশমিক ৭৯ শতাংশ। ২০১৪ সালে তা এসে দাঁড়িয়েছে ২২ দশমিক ২৮ শতাংশে। সবচেয়ে বেশি ৪ হাজার ৯৭০টি (২৫ দশমিক ৫৬ শতাংশ) মামলা নিষ্পত্তি ২০১৩ সালে।