নির্দলীয় সরকারের পক্ষে ৮২ শতাংশ মানুষ

দেশের বেশির ভাগ মানুষ নির্দলীয় ও নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে আগামী জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠানের পক্ষে মত দিয়েছেন।

প্রথম আলোর উদ্যোগে পরিচালিত এবারের জনমত জরিপ অনুযায়ী, এই মতের পক্ষে উত্তরদাতার সংখ্যা ৮২ শতাংশ। অবশিষ্ট ১৮ শতাংশ উত্তরদাতা দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন চেয়েছেন। এর আগে গত এপ্রিলে পরিচালিত এবং ১১ মে প্রথম আলোয় প্রকাশিত জরিপে ৯০ শতাংশ মানুষ নির্দলীয় সরকারের পক্ষে ছিলেন। ২০১১ ও ২০১২ সালের জরিপে যথাক্রমে ৭৩ ও ৭৬ শতাংশ মানুষ নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের পক্ষে মত দিয়েছিলেন।

জরিপে পাওয়া তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, বিএনপিকে ভোট দিতে চান এমন উত্তরদাতা সবাই নির্বাচনের সময় নির্দলীয় ও নিরপেক্ষ সরকার চেয়েছেন। আওয়ামী লীগকে ভোট দিতে ইচ্ছুক ব্যক্তিদেরও অর্ধেকের সামান্য বেশি উত্তরদাতা নির্দলীয় ও নিরপেক্ষ সরকারের পক্ষে মত দিয়েছেন।

বর্তমান জরিপে নির্দলীয় ও নিরপেক্ষ সরকারের পক্ষে জনমত গতবারের চেয়ে ৮ পয়েন্ট কমে যাওয়ার কারণ সম্পর্কে জরিপ পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান ওআরজি-কোয়েস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মঞ্জুরুল হককে প্রশ্ন করা হয়। তিনি বলেন, ‘জনমত নানা কারণে বদলায়। এ দুই জরিপের মধ্যবর্তী সময়ে দেশে পাঁচটি সিটি করপোরেশনের নির্বাচন হয়েছে। সেগুলোতে বিএনপি-সমর্থিত প্রার্থীরা জয়ী হয়েছেন। তাতে অনেকে ভেবে থাকতে পারেন, দলীয় সরকারের অধীনেও অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন সম্পন্ন হওয়া সম্ভব। এই জরিপে হয়তো সেই মনোভাবের ছাপ পড়েছে।’

নির্বাচনকালীন সরকারের প্রশ্নে নারী-পুরুষ ও বয়সভেদে মতামতের ক্ষেত্রে কিছুটা তারতম্য লক্ষ করা গেছে। পুরুষদের মধ্যে ৮০ ও নারীদের মধ্যে ৮৩ শতাংশ উত্তরদাতা আগামী জাতীয় নির্বাচনে নির্দলীয় ও নিরপেক্ষ সরকারের পক্ষে অবস্থান নিয়েছেন। ৩০ বছরের কম বয়সী উত্তরদাতাদের মধ্যে ৮৪ শতাংশ এবং ৫৫ বছরের বেশি বয়সীদের মধ্যে ৭৯ শতাংশ উত্তরদাতার মতামত নির্দলীয় ও নিরপেক্ষ সরকারের পক্ষে।