শিল্প-কারখানায় প্রকাশ্যে ধূমপান নিষিদ্ধ হচ্ছে: শিল্পমন্ত্রী

amu (1)

দেশের সব শিল্প-কারখানায় প্রকাশ্যে ধূমপান নিষিদ্ধের বিধান রেখে একটি পরিপত্র জারি করতে যাচ্ছে শিল্প মন্ত্রণালয়। দুটি সংগঠনের দাবির প্রেক্ষিতে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু এ কথা জানান।

শিল্প-কারখানার ধূমপান নিষিদ্ধের দাবিতে আজ মঙ্গলবার শিল্প মন্ত্রণালয়ে আমরা ধূমপান নিবারণ করি (আধূনিক) এবং ধূমপান, মাদক ও সন্ত্রাসবিরোধী জোট (ক্যাট) এর যৌথ প্রতিনিধি দল শিল্পমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেন। বৈঠক শেষে মন্ত্রী জানান, পরিপত্রে শিল্প-কারখানার যেখানে-সেখানে ধূমপান নিষিদ্ধ করা হবে। ধূমপায়ীদের জন্য বাধ্যতামূলক একটি আলাদা কক্ষ স্থাপনেরও নির্দেশনা থাকবে।

বৈঠকে প্রতিনিধিদলের সদস্যরা তামাকের ক্ষতিকর প্রভাব সম্পর্কে শিল্পমন্ত্রীকে অবহিত করেন। তাঁরা বলেন, তামাক চাষের ফলে চাষিদের স্বাস্থ্যগত ঝুঁকি বৃদ্ধির পাশাপাশি বহু আবাদি জমি উর্বরতা হারাচ্ছে। তামাক চাষের পরিবর্তে বিকল্প অর্থকরী ফসল উৎপাদনে চাষিদের উদ্বুদ্ধ করতে তাঁরা সরকারের সহায়তা কামনা করেন। একই সঙ্গে তামাকজাত পণ্য আমদানিতে উচ্চহারে শুল্ক আরোপের পরামর্শ দেন ওই প্রতিনিধি দলের সদস্যরা।

এ সময় শিল্পমন্ত্রী জাতীয় স্বার্থে তামাকজাত দ্রব্য আমদানিতে উচ্চহারে শুল্কারোপের বিষয়টি ইতিবাচক দৃষ্টিকোণ থেকে বিবেচনার আশ্বাস দেন। তিনি আরও বলেন, ধূমপান ও তামাকজাত পণ্য প্রতিরোধে সরকার ২০১৩ সালের এপ্রিলে সংশোধিত আকারে তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন পাস করেছে। চলতি বছরের ১২ মার্চ এ আইনের আওতায় তামাক নিয়ন্ত্রণ বিধিমালা-২০১৫ প্রণয়ন করা হয়েছে। এর আওতায় পাবলিক প্লেস ও গণপরিবহনে ধূমপান সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

বৈঠকে আধূনিকের সভাপতি ও বার্তা সংস্থা ইউএনবির চেয়ারম্যান আমানুল্লাহ খান, নির্বাহী সচিব এম এ জব্বার, ক্যাটের সভাপতি আলী নিয়ামত প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।