সংসদে ভুল তথ্য দিলেন বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী!

সংসদে ভুল তথ্য দিলেন বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী এনামুল হক। এ নিয়ে গতকাল মঙ্গলবার অসন্তোষ প্রকাশ করলেন সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আওয়ামী লীগের সাংসদ রফিকুল ইসলাম।
গতকাল সংসদে রফিকুল ইসলামের উত্থাপিত এক প্রশ্নের জবাবে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী হাইমচরের বিদ্যুৎ-লাইন নির্মাণের লক্ষ্যমাত্রা দেখিয়েছেন ৫৭ কিলোমিটার। জাতীয় পার্টির হাফিজ উদ্দিন আহম্মদের অন্য এক প্রশ্নের জবাবে দেখিয়েছেন ২৭ কিলোমিটার। একইভাবে ফরিদগঞ্জের ক্ষেত্রে দেখানো হয়েছে ৩৮ কিলোমিটার ও ৩৫ কিলোমিটার।
পয়েন্ট অব অর্ডারে দাঁড়িয়ে এ বিষয়ে স্পিকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন রফিকুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘মন্ত্রণালয় যদি ভুল তথ্য দেয়, তাহলে আমরা কোথায় আস্থা রাখব।’ তিনি আরও বলেন, ‘আশা করি, মন্ত্রণালয় যে তথ্য দেবে তা সঠিক হবে। কিন্তু সেটা হচ্ছে না। তারকা চিহ্নিত প্রশ্নে যে তথ্য দেওয়া হয়েছে, তার সঙ্গে তারকাবিহীন প্রশ্নের জবাবের মিল নেই।’
রফিকুল ইসলাম আরও অভিযোগ করেন, ‘বিদ্যুৎ-লাইন বরাদ্দের ক্ষেত্রে কী ধরনের নীতিমালা অনুসরণ করা হয়, তা বোধগম্য নয়। কোথাও বেশি, কোথাও কম। আমাদেরও তো ভোট চাইতে হয়। বৈষম্য হলে জনগণের কাছে কী জবাব দেব।’
এ ছাড়া তারকা চিহ্নিত প্রশ্নের জবাবে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী এ বি তাজুল ইসলামকে চাঁদপুরের সাংসদ হিসেবে দেখানো হয়েছে। অন্য এক প্রশ্নের জবাবে তাঁকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সাংসদ হিসেবে দেখানো হয়েছে। মূলত এ বি তাজুল ইসলাম ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৬ আসনের সাংসদ। রফিকুল ইসলাম এ বিষয়েও স্পিকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।
এ সময় স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, ‘এ ব্যাপারে আমরা মন্ত্রণালয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।’